ইসলামিক স্ট্যাটাস

এখানে আমরা অনেক গুলো সুন্দর সুন্দর ইসলামিক স্ট্যাটাস ও ক্যাপশন দিয়েছি । অনলাইনে হাজার হাজার ইসলামিক স্ট্যাটাস পাওয়া যায় । একটু খেয়াল করলে দেখবেন সবাই প্রায় একই লেখা দিয়েছে । সবাই একজনের লিখা গুলোকেই বার বার এডিট করে দিয়েছে । কিন্তু আমাদের এখানে যে লিখা গুলো আছে, এগুলো একান্তই আমাদের নিজেদের লিখা । তাই এগুলো অন্য কোথাও পাবেন না । আর যদিও অন্য কোথাও এগুলো দেখেন, তাহলে বুঝবেন, তারাও আমাদের এখান থেকে কপি করে দিয়েছে । যারা লেখা কপি করে তাদের সাইট ভিজিট করবেন না । আসুন তাহলে শুরু করা যাক ।

ইসলামিক স্ট্যাটাস :

১। জীবনের সব কিছু চলে গেলেও ঈমান যেন ঠিক থাকে । দুনিয়াতে সফলতার কিছুই নেই, আসল সফলতা আখেরাতে ।

২। নিজে নামাজ না পড়ে অন্যকে নামাজ পড়তে বলা হচ্ছে এক ধরণের ফাজলামি ।

৩। ফজরের দুই রাকাত সুন্নাত নামাজের মূল্য দুনিয়া এবং দুনিয়াতে যা কিছু আছে তার চেয়েও অধিক মূল্যবান ।

৪। সবচেয়ে কঠিন কাজ হচ্ছে মানুষের মন জয় করা আর সবচেয়ে সহজ কাজ হচ্ছে আল্লাহ্‌র কাছে প্রিয় হওয়া ।

৫। আল্লাহ্‌ যদি কাউকে ধ্বংস করে পৃথিবীর কারো সাধ্য নাই তাকে রক্ষা করার, আল্লাহ্‌ যদি কাউকে উন্নত করে পৃথিবীর কারো সাধ্য নাই তার ক্ষতি করার ।

৬। পৃথিবীর সবাই যদি আপনাকে ঠকায়, আপনি যদি সৎ থাকেন, তাহলে আপনার উন্নতি কেউ ঠেকাতে পারবে না ।

৭। পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মিথ্যা হলো, কারো সম্পর্কে কিছু অনুমান করা ।

৮। যার ঈমান যত শক্ত, সে তত বিনয়ী ।

৯। আল্লাহ্‌ চাইলে এক নিমিষেই পৃথিবী ধ্বংস করে দিতে পারেন, কিন্তু তিনি তা করেন না । কারণ তিনি অতি দয়ালু ও সর্বশক্তিমান ।ইসলামিক স্ট্যাটাস

১০। কেউ আপনার সাথে প্রতারণা করলে তাকে ছেড়ে দিন, আপনাকে কিছুই করতে হবে না । মনে রাখবেন একজন আছেন যদি সবকিছুই দেখছেন এবং হিসেব রাখছেন ।

১১। আল্লাহ্‌র গোলাম হয়ে যান, পৃথিবীর মানুষ আপনার গোলাম হয়ে যাবে ।

১২। পৃথিবীতে সবচেয়ে বড় পাপ হচ্ছে মানুষের মনে কষ্ট দেয়া । এর থেকে বিরত থাকুন ।

See also  মেয়েদের প্রোফাইল পিক ক্যাপশন

১৩। যে ব্যাক্তি হযরত মোহাম্মাদ (সাঃ) কে ভালবাসতে পারবে না, সে পরিপূর্ণ ইমানদার হতে পারবে না ।

১৪। আমাদের উচিৎ এই পৃথিবীতে মুসাফির এর মত থাকা, কারণ এটা আমাদের স্থায়ী বাসস্থান নয় ।

১৫। মুমিনের জন্য দুনিয়া হলো জেলখানা, আর মুনাফিকের জন্য দুনিয়া হলো বেহেস্ত ।

১৬। যে ঘরে স্বামী এবং স্ত্রী নিয়মিত জাহাজ্জুতের নামাজ পড়ে সে ঘরে আল্লাহ্‌র রহমত ও বরকত অনেক বেশী থাকে ।

১৭। আপনি যত বড় পাপী হন না কেন, মনে রাখবেন আল্লাহ্‌র দয়ার চেয়ে বড় না । তাই হতাশ হবেন না ।

Read more:>>> ইসলামিক উক্তি

১৮। মানুষ পাপ করে ফেললে ক্ষমা চাইতে হবে আল্লাহ্‌র কাছে । আল্লাহ্‌ ক্ষমা করার জন্য বসে আছেন । তিনি তার বান্দাদের অনেক ভালোবাসেন ।

১৯। জীবনের সবচেয়ে ভালো কাজ হচ্ছে মানুষকে সাহায্য করা আর আল্লাহ্‌র ইবাদাত করা ।

২০। লোভ, হিংসা, অহংকার মানুষের নেক আমল গুলোকে পুড়িয়ে দেয়, যেমন করে শুকনো কাঠকে আগুন পুড়িয়ে দেয় ।

২১। জীবনে যত পাপই করেন না কেন, ক্ষমা চেয়ে আল্লাহ্‌র কাছে ফিরে আসুন । আল্লাহ্‌ কাউকেই হতাশ করেন না ।

২২। আপনি যদি মানুষের উপকার করেন, তাহলে আল্লাহ্‌ কোন না কোন ভাবে আপনাকে সেই উপকারের বিনিময় দান করবেন ।

২৩। যেখানেই যাবেন সময় মত নামাজ আদায় করে নিবেন, আল্লাহ্‌র রহমতে আপনার কোন বিপদ হবে না ।

২৪। আল্লাহ্‌কে খুশী করার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে বেশী বেশী নামাজ পড়া ।

২৫। যাদের অন্তরে আল্লাহ্‌র ভয় আছে, তারা কোনদিন বড় ধরণের খারাফ কাজ করতে পারে না ।

Read more:>>> ফেসবুক স্ট্যাটাস

২৬। আল্লাহ্‌ বলেছেন, মানুষের সবচেয়ে বড় প্রকাশ্য শত্রু হচ্ছে শয়তান । তাই শয়তান থেকে নিজেকে হেফাজত রাখতে হবে ।

২৭। যে ঘরে প্রতিদিন কোরআন তেলাওয়াত হয়, সে ঘরে শয়তান প্রবেশ করতে পারে না ।

২৮। শয়তান এর হাত থেকে বাঁচতে হলে ৫ ওয়াক্ত নামাজ ও অল্প কিছু আমল করতে হবে ।

২৯। কেউ যদি বলে আমি নামাজ না পড়লেও আমার ঈমান ঠিক আছে, তাহলে সে আল্লাহ্‌র সাথে তামাশা করছে ।

See also  মনের কিছু না বলা কথা

৩০। মুমিন এবং মুশরিক এর মধ্যে একমাত্র বায্যিক পার্থক্য হচ্ছে নামাজ ।

ইসলামিক ক্যাপশন :

আরো নতুন কিছু ইসলামিক স্ট্যাটাস ও ক্যাপশন পেতে নিচে দেখুন :

১। আপনার যদি নামাজ ঠিক থাকে, তাহলে মনে রাখবেন আপনার সবকিছুই ঠিক আছে, আর আপনার যদি নামাজ ঠিক না থাকে তাহলে মনে রাখেবন আপনি ক্ষতির মধ্যে পড়ে গেছেন ।

২। কেউ যদি আপনার উপকার করে , তাহলে তাকে ধন্যবাদ দিন । তবে আল্লাহ্‌র প্রশংসা আর শুকরিয়া আরো বেশী করবেন, কারণ আল্লাহ্‌ই তার মাধ্যমে আপনার উপকার করিয়েছেন ।

৩। যখনই বিপদে পড়বেন আল্লাহ্‌কে বেশী বেশী করে স্মরণ করবেন, এবং তার কাছেই সাহায্য চাইবেন । কারণ তিনি চাইলে এক মুহূর্তেই আপনার বিপদ দূর করে দিতে পারেন ।

৪। পৃথিবীর কেউ আপনার মূল্য না দিলেও আল্লাহ্‌ আপনার মূল্য দিবেন । তাই পৃথিবীর মানুষের পিছনে চা ছুটে আল্লাহ্‌কে খুশী করার চেষ্টা করুন ।

৫। আল্লাহ্‌ যার ভালো চান, তাকে দরিদ্রতা দান করেন । এবং সবার কাছে থেকে একা করে দেন ।

৬। কেউ আপনার ক্ষতি করলে তাকে ছেড়ে দেন, আল্লাহ্‌র উপর ভরসা করে এগিয়ে চলুন, নিজের কাছে সৎ থাকুন । দেখবেন আপনি সফলতার সবচেয়ে উপরের ধাপে উঠে গেছেন ।

৭। পৃথিবীর সবাই আপনাকে ঠকালেও আল্লাহ্‌ আপনাকে কখনই ঠকাবে না । তাই সবকিছুই একমাত্র আল্লাহ্‌র জন্যই করুন ।

৮। মানুষ চাইলে জাহান্নাম হতে বাঁচতে পারে, কিন্তু চাইলেই মৃত্যু হতে বাঁচতে পারবে না । কিন্তু মানুষ জাহান্নাম এর চেয়ে মৃত্যুকেই বেশী ভয় পায় ।

৯। পৃথিবীর সবচেয়ে দামি কথা হচ্ছে, “লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ” ।

১০। পৃথিবীতে আপনি যার সাথে বেশী সময় কাটাবেন, আখিরাতেও আপনি তার সাথেই থাকবেন ।

১১। এত টাকা পয়সা দিয়ে কি করবেন, কবরের ফেরেশতারা তো ঘুষ নেয় না ।

১২। আল্লাহ্‌ মানুষের চেহারা কিংবা অর্থ-সম্পদ দেখেন না, আল্লাহ্‌ মানুষের অন্তর দেখেন ।

১৩। মানুষকে যতই ভালোবাসুন, তাদের খুশী করতে পারবেন না, আল্লাহ্‌কে ভালোবাসুন, দেখবেন জীবনে আর কোন কিছুর অভাব হবে না ।

১৪। অনেক ধন-সম্পদ থাকলে তা সফলতা নয়, আসল সফলতা হলো জান্নাত লাভ করা ।

See also  বেস্ট ক্যাপশন বাংলা

১৫। জীবনে যা কিছু করবেন, সব কিছু একমাত্র আল্লাহ্‌র সন্তুষ্টির জন্যই করবেন । তাহলে দেখেবন, আল্লাহ্‌ আপনাকে পরিপূর্ণ করে দিয়েছেন ।

১৬। এই দুনিয়াতে বড় কিছু হতে হবে এমন কোন কথা নেই, যারা নিরবে আল্লাহ্‌র ইবাদাত করে গেছেন, তারা সবাই আজ সফল হয়েছেন ।

১৭। আপনি যত দুঃখ কষ্টেই থাকুন না কেন, আল্লাহ্‌র রহমত হতে হতাশ হবেন না । অন্যায়ের পথে পা বাড়াবেন না । আল্লাহ্‌ সবাইকেই পরিক্ষা করবেন ।

১৮। জীবনের যত দুঃখ কষ্ট আছে সবকিছু নামাজের মাধ্যমে আল্লাহ্‌কে বলুন, আল্লাহ্‌ চাইলেই আপনার সবকিছু ঠিক করে দিতে পারেন ।

১৯। আপনার যত অর্থ সম্পদ আছে, এগুলো আপনার নয়, এগুলো আল্লাহ্‌ আপনার পরিবার এর সবার জন্য দিয়েছেন । তাই নিজের মনে করে সব ধরে রাখবেন না ।

২০। মানুষ চরম অকৃতজ্ঞ, তারা নিজের কারণে বিপদে পড়ে, আর দোষ দেয় ভাগ্যের ।

২১। সেজদার মাধ্যমে আল্লাহ্‌কে আপনার সকল চাহিদার কথা বলুন, দেখবেন আল্লাহ্‌ আপনার সকল চাহিদা এক এক করে পূরণ করছেন ।

২২। চাওয়ার মত চাইতে পারলে আল্লাহ্‌ কাউকেই ফিরিয়ে দেন না । তিনি তো সব কিছু নিয়ে বসে আছেন, কিন্তু আমরা চেয়ে নিতে পারছি না ।

২৩। যদি কোন অত্যাচারিত ব্যাক্তি কারো নামে আল্লাহ্‌র কাছে বিচার দেয়, তাহলে সেই অত্যাচারী খুব শিগ্রই ধ্বংস হবে ।

২৪। দুনিয়াতে দরিদ্র মানুষরাই বেশী পরিমানে জান্নাতে থাকবে ।

২৫। যে ব্যাক্তি অন্যায় করে লজ্জিত হয় না, আল্লাহ্‌ তাকে লাঞ্ছিত করেন ।

২৬। এই দুনিয়াতে মানুষ যা করবে, তার ফলই সে মৃত্যুর পরে পাবে । তাই দুনিয়ার জীবন সুন্দর করতে হবে । সালাত আর আখলাক দিয়ে ।

প্রিয় বন্ধুরা, আমাদের লেখা এই ইসলামিক স্ট্যাটাস ও ক্যাপশন গুলো আপনাদের কাছে কেমন লেগেছে । তা আমাদের নিচে কমেন্ট করে জানাতে পারেন । আমরা চেষ্টা করেছি আপনাদের ভালো লেখা গুলো উপহার দিতে । সবাই ভালো থাকুন এই কামনা করি ।

About the Author:

I am Habibur Rahman, Like to read and write all latest technology tips and tricks.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *